স্বাস্থ্য ভালো রাখার ঔষধ হিসেবে ৫ টি গাছের গুরুত্ব

শুধুমাত্র স্বাস্থ্য ভালো রাখার ঔষধ হিসেবে নয় বরঞ্চ স্বাস্থ্যের উন্নতি সাধনে এই পাঁচটি গাছের গুরুত্ব যে অনেক তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

স্বাস্থ্য ভালো রাখার ঔষধ

মানুষের সাথে সবসময় উদ্ভিদ এবং এর নিরাময় বৈশিষ্ট্যের একটি গভীর সংযোগ রয়েছে। অনেকেই আমরা জানি কাশির প্রতিকারের জন্য আদা চা অথবা হোমিওপ্যাথিক ওষুধের ব্যাপক ব্যবহার করা হয় যদি কেউ ছয় মাসের মধ্যে অন্তত দুইবার আক্রান্ত হয়। যখন আমরা চিকিৎসার কথা চিন্তা করি, তখন আমরা সাধারণত পাশ্চাত্য ঔষধি চিকিৎসার দ্বারস্থ হয়ে যাই, কিন্তু অতীতে উদ্ভিজ্জ চিকিৎসা ব্যাবস্থা আমাদের বর্তমান পদ্ধতির চেয়ে অনেক বেশি রোগ নিরাময়ের জন্য ব্যবহৃত হয়েছে।

২০০৬ সালে একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, ৭৫%-এর বেশি ওষুধ প্রাকৃতিক উৎস থেকে উদ্ভূত হয়- যা সাধারণত উদ্ভিদের যৌগ এবং ছত্রাকের উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়। তাই এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই যে,মানুষ মাদার নেচারের দিকে ফিরে আসছে জেনে বুঝে অথবা না জেনে না বুঝেই! আজ আমরা যে পাঁচটি উদ্ভিদ নিয়ে আলোচনা করব তা স্বাস্থ্যের জন্য বিভিন্ন উপকারিতা প্রদান করতে থাকে। ঐতিহ্যগতভাবে এগুলি প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে রোগ নিরাময়কারীরা ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে যা শারীরিক এবং মানসিক উভয় সুস্থতা প্রদান করে এবং স্বাস্থ্য ভালো রাখার ঔষধ হিসেবে কাজ করে।

স্বাস্থ্য ভালো রাখার ঔষধ হিসেবে গাছের গুরুত্ব

স্বাস্থ্য ভালো রাখার ঔষধ হিসেবে যে ৫ টি গাছের গুরুত্ব রয়েছে সেগুলো হল,

  • আদা
  • হলুদ
  • অ্যালোভেরা
  • পার্সলে
  • সিবিডি

আদা

স্বাস্থ্য ভালো রাখার ঔষধ

আদা অনেক খাবারের মধ্যে একটি সাধারণ মশলা বিশেষ খাবার, কিন্তু এটিতে শক্তিশালী ঔষধি গুণ রয়েছে এবং এটি ইমুইনিটি সিস্টেমকে শক্তিশালী করাতে অথবা অনাক্রম্যতা বাড়াতে বা বমি বমি ভাব কমাতে এবং মাথা ঘুরা ভাবের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে। উপরন্তু, এটি প্রদাহ কমাতে এবং পরবর্তীতে হজমে সহায়তা করতে দেখা গিয়েছে। বাংলাদেশ এবং ভারতের মতো জায়গায় যে কোন মুদি দোকান থেকে আদা কিনতে পারবেন।

হলুদ

স্বাস্থ্য ভালো রাখার ঔষধ

হলুদও একটি মশলা জাতীয় খাদ্য যা বহু শতাব্দী ধরে আয়ুর্বেদিক ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে এবং পশ্চিমা বিশ্বে আরো জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। এটি প্রদাহের বিরুদ্ধে লড়াই করতে, কোলেস্টেরল কমিয়ে আনতে, হজমে উন্নতি করতে এবং এমনকি হাড়ের ঘনত্ব বৃদ্ধিতেও সহায়তা করে থাকে। এটিও যে কোনও মুদি দোকানে বা অনলাইনে পাওয়া যেতে পারে। আর বাংলাদেশ এবং ভারতের মতো জায়গায় এটি পাওয়া একদম সহজই বটে।

অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরা বেশিরভাগ নার্সারি এবং বাসা বাড়িতে এবং অনেক ফার্মেসিতেও পাওয়া যায়। অ্যালোভেরার জেলের বিশেষ বৈশিষ্ট্যগুলির কারণে পোড়া জায়গায় কিংবা রোদে পোড়া জায়গায় ব্যবহৃত হয়। এটির প্রদাহবিরোধী প্রভাবও রয়েছে, তাই এটি এমন ব্যক্তিদের জন্যও উপযুক্ত যাদের বাত বা অন্যান্য জয়েন্টের ব্যথা রয়েছে।

পার্সলে

পার্সলে হল একটি সাধারণ গার্নিশ এবং ওষুধি গাছ যা খাবার প্রস্তুতে ব্যবহৃত হয়। কিন্তু এটিতে শক্তিশালী ওষুধি গুণাবলী থাকায় চুল পড়া বা বুক জ্বালাপরার মত রোগে ব্যবহৃত হয়। এতে রয়েছে উচ্চ আয়রন এবং ভিটামিন সি, এবং ভিটামিন বি-কমপ্লেক্স, যা শরীরের জন্য অতি প্রয়োজনীয়।

পার্সলে ফোলেটের একটি দুর্দান্ত উৎস, যা জন্মগত প্রতিবন্ধকতা প্রতিরোধে এবং হৃদরোগ থেকে রক্ষা করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। যে কোনও মুদি দোকান বা বাজারে এটি সস্তা এবং সহজেই পাওয়া যায়। মনে রাখবেন যে রান্নার কাজে আপনার কেবল পাতা ব্যবহার করা উচিত কারণ এর ডালপালার আপনাকে খুব বাজে অভিজ্ঞতার দর্শন দিতে পারে।

সিবিডি

সিবিডি (CBD) একটি রাসায়নিক যৌগ যা গাঁজা জাতীয় উদ্ভিদ এবং শণে পাওয়া যায়। এটি নন-সাইকোঅ্যাকটিভ, যার অর্থ টিএইচসি-র (THC) মতো গ্রহন করার সময় এটি আপনাকে অসুস্থ করবে না। পরিবর্তে, কেবলমাত্র CBD মাথাব্যাথা বা মাসিক ক্র্যাম্প থেকে ব্যথা উপশম করতে সাহায্য করতে পারে। এর বাহিরে প্রদাহবিরোধী এজেন্ট হিসাবে এর কার্যকারিতা অনেক। এটি এন্ডোক্যানাবিনয়েড সিস্টেমকে কীভাবে প্রভাবিত করে সে বিষয়ে আরও গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে।


আরো পড়ুন
কলার উপকারিতা জানুন আপনার সুস্বাস্থ্যের জন্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *