June 22, 2021

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

হার্ট অ্যাটাক বর্তমান বিশ্বের কমন রোগ গুলোর মধ্যে অন্যতম। WHO এর ২০১৮ সালের পাবলিশ করা ডাটা থেকে জানা যায় বাংলাদেশের মোট মৃত্যুর ১৫.২৩% ই ঘটে হার্ট অ্যাটাকের কারণে। এছাড়াও পরিসংখ্যান থেকে জানা যায় বিশ্বে হার্ট অ্যাটাকের কারণে সব থেকে বেশি মানুষ মারা যায়।

হার্ট অ্যাটাক এ কি কি খাবার খাবেন

হার্ট অ্যাটাকের পর হার্টকে সুস্থ রাখতে যে যে খাবার আপনার খাদ্য তালিকায় থাকা প্রয়োজন তার একটা ছোট্ট সামারি শুরুতে দিচ্ছি। এর পর আমরা ডিটেইল এ যাবো ইন শা আল্লাহ।

এক নজরে…

১। শতমূলী (Asparagus)

২। মটরশুঁটি, মসূরডাল, ছোলা

৩। গ্রিন টি 

৪। বাদাম 

৫। লিভার

৬। ওট্মিল

৭। শাঁক সবজি

৮। ডার্ক চকোলেট

৯। কফি

১০। ওমেগা 3S সমৃদ্ধ মাছ

১১। ব্রকলি

১২। বেরি

১৩। চায়া সিডস, ফ্লাক্সসিডস

এছাড়াও সালাদ, টক ফল, খোসাসহ পেয়ারা, আমলকী, কামরাঙ্গা, আমড়া, লেবু ও বরই- দেহে বিদ্যমান কোলেস্টেরল এর মাত্রা কমাতে দারুন উপকারী।

হার্ট অ্যাটাক এ শতমূলী’র কাজ

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

ফলিক এসিডের প্রাকৃতিক উৎস গুলোর মধ্যে শতমূলী অন্যতম। যেটি শরীরে অতিরিক্ত অ্যামাইনো এসিড তৈরিতে বাঁধা দেয়। অতিরিক্ত অ্যামাইনো এসিডের ফলে করোনারি আর্টারি ডিজিজ (Coronary artery disease) অথবা স্ট্রোকের (Stroke) মতো রোগ হবার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

হার্ট অ্যাটাক এ মটরশুঁটি, মসূরডাল, ছোলার ভূমিকা

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

মটরশুঁটি, ছোলা, বুট, মসূরডাল লো ডেনসিটি লিপোপ্রোটিন (LDL) কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। লো ডেনসিটি লিপোপ্রোটিন খারাপ কোলেস্টেরল হিসেবে পরিচিত। খারাপ কোলেস্টেরলের কারণে হার্ট অ্যাটাক হয়ে থাকে।

হার্ট অ্যাটাক এ গ্রিন টি

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, খুব সামান্য পরিমানে হলেও কোলেস্টেরল এঁর মাত্রা কমাতে গ্রিন টি এর বেশ জোরাল ভূমিকা রয়েছে। আর আমরা জানি যে, প্রধানত কোলেস্টেরল এর জন্যেই স্ট্রোক এবং হার্টের রোগ হয়ে থাকে। আরেকটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, গ্রিন টি উচ্চ রক্ত চাপকে কমাতেও বেশ ভালো ভূমিকা রাখে।

হার্ট অ্যাটাক এ কি কি বাদাম খেতে পারেন

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

অ্যালমন্ড (Almond), চিনা বাদাম (Peanuts), পেস্তা বাদাম (Pistachious), আক্ষোট (Walnuts), হ্যাজেল বাদাম (Hazelnuts) এবং পিকান্স (Pecans) হার্টের রোগের জন্য বেশ উপকারি। এগুলোর সবগুলই প্রোটিন, ফাইবার, মিনারেল, ভিটামিন এবং অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট সমৃদ্ধ খাবার।

লিভার

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

যেকোনো পশুর কলিজা পুষ্টির এক বিশাল আঁধার। লিভারে আয়রন, ফলিক এসিড, জিংক, ক্রোমিয়াম এবং কপার প্রচুর পরিমাণে থাকে। যেগুলো রক্তে হিমোগ্লোবিন এর পরিমাণ বাড়াতে সহায়তা করে।

আরও পড়ুনঃ ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের সবথেকে বড় ১০ উৎস

ওট্মিল

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

ওট্মিল হল সলুবল ফাইভার (Soluble fiber) সমৃদ্ধ খাবার যেটা হার্টের রোগীর জন্য প্রয়োজনীয়। ওট্মিল এলডিএল (LDL) এবং টোটাল কোলেস্টেরল (Total cholesterol) লেভেল কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

শাঁক সবজি

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

ফলমূল ও সবজির পটাশিয়াম রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে আবার ফল ও সবজির ফাইবার খারাপ কোলেস্টেরল কমাতে, ওজন ও প্রেশার নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। সবজির মিনারেল ও ভিটামিন, বিশেষ করে ভিটামিন সি, ই ও এ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে, যা একজন হৃদরোগীর অন্যান্য রোগের ঝুঁকি কমায়।
রোজ ২ থেকে তিন পরিবেশনে সবজি খেলে ভালো। ব্যক্তি বিশেষ ২ থেকে ৩ পরিবেশনে ফল খাওয়া ভালো। সালাদ, মিক্স সবজি নিরামিষ, শাক, ফল ও ফলের সালাদ অনেক উপকারী। তবে চিনি যুক্ত ফলের রস অবশ্যই এড়িয়ে চলতে হবে।

ডার্ক চকোলেট

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

বিজ্ঞানীরা দেখেছেন, আথেরস্ক্লেরেসিস রোগকে প্রতিরোধ করতে ডার্ক চকোলেট এর বিশেষ ভূমিকা রয়েছে। ডার্ক চকোলেট শ্বেত রক্ত কনিকাকে রক্ত নালীতে লেগে যেতে দেয় না এবং আর্টারিকে সরু হতে বাঁধা দেয়।

কফি

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

সমসাময়িক গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, নিয়মিত কফি পান করলে হার্ট ফেইলর অথবা স্ট্রোকের মতো রোগ হবার সম্ভাবনা অনেক কমে যায়।

ওমেগা 3s সমৃদ্ধ মাছ

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

মাছ ওমেগা 3s ফ্যাটি এসিড এবং প্রোটিন এর এক বিরাট উৎস। যেসব মানুষ হার্টের রোগের ঝুঁকিতে রয়েছে অথবা যেসব মানুষের হার্টের রোগ অলরেডি হয়েছে তাদেরকে ওমেগা 3s ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ মাছ খেতে বলা হয়। কারণ ওমেগা 3s ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ মাছ অ্যাবনরমাল হার্ট বিটকে কমাতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এছাড়া আর্টারিতে কোলেস্টেরল জমাট বাঁধাকে প্রতিরোধ করে। ওমেগা 3s ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ মাছের মধ্যে ম্যাকরল (Mackerel), স্যামন (Salmon), সি বাস (Seabass),  ঝিনুক (Oesters), সামুদ্রিক পোনা মাছ (Sardins), ইলিশ মাছ, ট্রাউট (Trout) অন্যতম।

ব্রকলি

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

কিছু রিসার্স থেকে জানা যায় নিয়মিত ব্রক্লি খেলে শরীরের কোলেস্টেরল লেভেল অনেকটা কমে যায়। এবং হার্টের রোগকে প্রতিহত করে।

বেরি

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

বেরি হচ্ছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার যেটা হার্ট অ্যাটাক এর রিক্স অনেক কমায়। ফাইবার, ফলিক এসিড, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন A & C এর এক বড় উৎস হল বেরি।

চায়া সিডস, ফ্লাক্সসিডস

হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

ওমেগা 3s ফ্যাটি এসিড এর এক বড় উৎস হল চায়া সিডস এবং ফ্লাক্সসিডস। ওমেগা 3s ফ্যাটি এসিড ট্রাইগ্লিসারাইড (Triglyciride), এলডিএল (LDL) এবং টোটাল কোলেস্টেরল (Total cholesterol) লেভেল কমাতে সহযোগিতা করে। এছাড়া ওমেগা 3s ফ্যাটি এসিড আর্টারিতে চর্বি কমাতে এবং রক্ত চাপ কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

আরও পড়ুনঃ ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের সবথেকে বড় ১০ উৎস

খাবার একজন মানুষের রোগকে প্রত্যক্ষভাবে সুস্থ করে তোলে না, সুস্থতা অর্জন করতে প্রয়োজন সঠিক সময়ে সঠিক চিকিৎসা। তবে পরিবর্তিত খাদ্যাভাস আপনাকে পুনরায় রোগী হওয়া থেকে রক্ষা করতে পারে, পুনরায় আপনি একি রোগে কিংবা নতুন কোন রোগে আক্রান্ত হোন সেটা থেকে বাঁচিয়ে রাখতে পারে। অর্থাৎ রোগ প্রিভেনশন বা প্রতিরোধক হিসেবে খাদ্যাভাসের প্রয়োজনীয়তা অনেক। এছাড়া শারীরিক ভাবে সুস্থ ও ফিট থাকতে খাদ্যাভাসের গুরুত্ব ব্যাপক। তাই সচেতন থাকুন হার্ট অ্যাটাক থেকে বেঁচে থাকুন।

এছাড়াও হার্ট অ্যাটাক হলে একজন হার্টের রোগী হিসেবে আপনি 

প্রতিদিন ৭-৯ ঘন্টা ঘুমান।

সপ্তাহে অন্তত আড়াই ঘন্টা ব্যায়াম করুন।

মানসিক চাপ কমিয়ে ফেলুন।

ধূমপান ছেড়ে দিন।

সোর্সঃ

  1. MedicalNewsToday
  2. BetterHealth
  3. WebMd
  4. BBC

One thought on “হার্ট অ্যাটাক এ গুরুত্বপূর্ণ ১৩ খাবার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *